ঠাকুরগাঁও পৌর নির্বাচন: প্রধানমন্ত্রীর সম্মান রাখলেন যুবলীগ নেতা আপেল

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: আসন্ন ঠাকুরগাঁও পৌরসভায় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিনে আবেক প্লাবিত কন্ঠে মেয়র পদে মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করেন ঠাকুরগাঁও জেলা আওয়ামীলী যুবলীগের সভাপতি আব্দুল মজিদ আপেল।

মঙ্গলবার বিকালে রিভারভিউ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এক কর্মী সভায় তিনি মনোয়নপত্র প্রত্যাহেরর ঘোষনা দেন। এ সময় তার সমর্থিতরা সকলেই কেঁদে ফেলেন। এছাড়াও মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন যুব মহিলালীগের সভাপতি অধ্যক্ষ তাহমিনা আখতার মোল্লাহ, জেলা আ, লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ্ব বাবলুর রহমান বাবুল। অপরদিকে বিএনপির পক্ষ থেকে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন।

যুবলীগ নেতা শাওন বলেন আপেল জেলা আওয়ামীগের একজন একনিষ্ঠ যোদ্ধা ছিলেন। তিনি এলাকার মানুষের সুখে-দুখে এগিয়ে যেতেন। তার প্রত্যারের বিষয়টি কেউ মেনে নিতে পারছে না। যুবলীগ নেতা প্রশান্ত কুমার রায় বলেন আপেল মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সম্মানকে গুরুত্ব দিয়েছেন। আমাদের অনেক নেতাকর্মী তার পক্ষ হয়ে নির্বাচনে কাজ করার জন্য যুবলীগ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন। আমারা দলের সার্থে সকল বাধাঁ বিপত্তি অপেক্ষা করে তার এই সিদ্ধান্ত সাধুবাদ জানিয়েছে অনেকে। তিনি আরো বলেন যুবলীগ আদর্শের সংগঠন তার আদর্শের জায়গা থেকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। একই কথা বলেন রায়হানসহ অনেকে।

যুবলীগ সভাপতি আব্দুল মজিদ আপেল নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন ব্যক্তির থেকে দল বড়, দলের থেকে দেশ বড়। তাই বৃহৎ স্বার্থকে মাথায় রেখে আমি আমার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিচ্ছি। তিনি আরো বলেন আওয়ামীলীগ মনোনিত নৌকা মার্কার প্রার্থীর পক্ষে কাজ করা জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান এই নেতা।

গত ১৭ জানুয়ারী আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মননোয়ন পত্র জমা দেন আ’লীগের দলীয় মনোনীত প্রার্থী কেন্দ্রীয় মহিলা লীগের সদস্য আঞ্জুমান আরা বন্যা,  স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুল মজিদ আপেল, যুব মহিলালীগের সভাপতি অধ্যক্ষ তাহমিনা আখতার মোল্লাহ, জেলা আ’লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ্ব বাবলুর রহমান বাবুল। বিএনপি’র মননোয়ন জমা দেন দলীয় মনোনীত প্রার্থী জেলা বিএনপির অর্থ বিষয়ক সম্পাদক শরিফুল ইসলাম শরিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মনোনীত প্রার্থী আনোয়ার হোসেন।

নির্বাচনী মাঠে মেয়র প্রার্থী হিসেবে থাকলেন আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী কেন্দ্রীয় মহিলা লীগের সদস্য আঞ্জুমান আরা বন্যা, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী জেলা বিএনপির অর্থ বিষয়ক সম্পাদক শরিফুল ইসলাম শরিফ এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মনোনীত প্রার্থী আনোয়ার হোসেন।

অন্যদিকে ১২ টি ওয়ার্ডে সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৬৩ জন মনোনয়পত্র জমা দিলেও ২ জন প্রার্থী প্রত্যাহার করেছেন এবং সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ডে ৯ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দিলেও কেউ প্রত্যাহার করেনি।

এদিকে ১১ নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে নুর ইসলামের বিপরীতে কোন প্রার্থী মনোনয়ন জমা না দেওয়ায় বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় তিনি আবারও কাউন্সিলর হতে চলেছেন।

মন্তব্য দিনঃ

About Ontu

Students Of Rajshahi University

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

আজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে ছয় মন্ত্রণালয়ের বৈঠক

বিডিগার্ডিয়ান ...